বাংলাদেশি গৃহকর্মীদের অভিযোগে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস সৌদি উপমন্ত্রীর

সৌদি আরবে বিভিন্ন জায়গায় কর্মরত বাংলাদেশি নারী গৃহকর্মীদের কাছ থেকে কোনো নেতিবাচক অভিযোগ পেলে সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে আশ্বস্ত করেছেন দেশটির শ্রম ও সামাজিক উন্নয়ন বিষয়ক উপমন্ত্রী ড. আব্দুল্লাহ বিন নাসের আবু থুনিয়ান। 

গতকাল বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় রিয়াদস্থ সৌদি আরবের শ্রম মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সফররত বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদের সঙ্গে ড. আব্দুল্লাহ বিন নাসেরের দ্বিপাক্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী ইমরান আহমদ এ কথা জানান। 


বৈঠকে আরো উপস্থিত ছিলেন সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসিহ, সৌদি শ্রম মন্ত্রণালয়ের সচিব (দ্বিপাক্ষিক) মাহের আল কাসেম, মহাপরিচালক (দ্বিপাক্ষিক) ফয়সাল আল উতাইবি, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব মো. যাহিদ হোসেন ও মো. সারোয়ার আলম, রিয়াদস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের পলিটিকাল মিনিস্টার এস এম আনিসুল হক, শ্রম কল্যাণ উইংয়ের কাউন্সেলর মো. মেহেদী হাসান প্রমুখ।

সভায় প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী সৌদি আরবে কর্মী পাঠানো এবং অবস্থানরত বাংলাদেশি কর্মীদের সুযোগ-সুবিধা ও বিভিন্ন সমস্যার প্রতিকারের বিষয়ে আলোচনা করেন।

সভায় দায়িত্বশীল ও মর্যাদাপূর্ণ অভিবাসন নিশ্চিত করতে বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা এবং সৌদি আরবের শ্রম মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে বছরে অন্তত দু’বার যৌথ কারিগরী কমিটির সভা অনুষ্ঠানের বিষয়ে উভয়পক্ষ সম্মত হয়। এ বছরের নভেম্বরে কমিটির সভা আয়োজনের ব্যাপারে একমত পোষণ করেন তারা।

সভায় সৌদি আরবের শ্রম উপমন্ত্রী ঢাকাস্থ সৌদি দূতাবাসে শ্রম উইং খোলার ব্যাপারে বাংলাদেশ সফরের আগ্রহ প্রকাশ করলে প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রী তাকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান। সেই সাথে এ ব্যাপারে মন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে যাবতীয় সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

সভায় প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ সৌদি আরবে অবস্থানরত বাংলাদেশি গৃহ কর্মীদের যথাযথ নিরাপত্তা ও প্রাপ্য অধিকারের বিষয়টি উত্থাপন করলে দেশটির শ্রম উপমন্ত্রী বলেন, এক্ষেত্রে কোনো ধরনের নেতিবাচক ঘটনার অভিযোগ পেলেই সাথে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এছাড়াও তিনি উল্লেখ করেন, সৌদি আরবে নারী গৃহ কর্মীদের জন্য ব্যাংক একাউন্ট খোলা হবে এবং ব্যাংকের মাধ্যমে তাদের বেতন পরিশোধ করা হবে। ২০১৯ সালের শেষ নাগাদই ‘মোসানেদ সিস্টেম’ আরো আপগ্রেড করা হবে এবং কাজ পরিত্যাগকারী নারী কর্মীদের দ্রুত দেশে ফেরত পাঠানো হবে বলেও তিনি আশ্বাস দেন।

মাইগ্রেশননিউজবিডি.কম/সাদেক ##

share this news to friends