নশ্চিতি হোক প্রত্যাগত নারীর্কমীর পুর্নবাসন
শাহনিূর বগেম, ত্রশিরে কাছাকাছি বয়সরে এক নারী লবোননে কাজরে উদ্দশ্যেে যাত্রাপথে পাচার হয়ে সরিয়িায় চলে যায়। অর্বণনীয় শারীরকি-মানসকি নর্যিাতনরে এক র্পযায়ে সৌভাগ্যক্রমে সে সরকার-িবসেরকারি সংস্থা আর গণমাধ্যমরে সহায়তায় দশেে ফরিে আসতে পার।ে আর দশেে ফরিে শুরু হয় নতুন যুদ্ধ। পারবিারকি-সামাজকি লাঞ্ছনার সাথে খাপ খাওয়ানো, নঃিস্ব অবস্থায় দনিপাত করা, সম্মান নয়িে বাঁচার যুদ্ধ। এ অবস্থায় কছিু সহানুভূতশিীল ব্যক্তরি কল্যাণে সে জানতে পারে ওয়জে র্আর্নাস ওয়লেফয়োর র্বোডরে কথা। যে র্বোড প্রবাসীর্কমীদরে কল্যাণে নয়িোজতি। সখোনে আবদেন করে সম্বলহীন শাহনিূর এক লাখ টাকা র্আথকি সহায়তা পায়। যে টাকা দয়িে সে নতুনভাবে বাঁচার চষ্টো করছ।ে
 
বহুকাল আগে থকেইে অধকি উর্পাজন আর উন্নত জীবনরে আশায় পুরুষরে পাশাপাশি নারীরাও প্রবাসে বভিন্নি র্কমে নজিদেরে নয়িোজতি করছে।ে বপিুল জনগোষ্ঠীর এদশেরে শ্রমবাজারে প্রতবিছর প্রায় ২০ লাখরেও বশেি নারী ও পুরুষ যুক্ত হচ্ছ।ে তার তুলনায় র্কমসংস্থানরে হার একবোরে কম। তাই এর বরিাট একটি অংশ র্কমহীন হয়ে পড়।ে র্কমহীন থাকলে স্বাভাবকিভাবইে সমাজে নানারকম সমস্যার সূত্রপাত হয়। তখন একরকম বাধ্য হয়ইে ভাবতে হয় অভবিাসনরে কথা। নব্বইয়রে দশক থকেে বাংলাদশে আনুষ্ঠানকিভাবে বদিশেে নারীর্কমী প্ররেণ শুরু কর।ে এরপর থকেে সরকার প্রায় ২০-২৫টি দশেে মোট ৭ লাখ ৯৭ হাজার ৬৯৫ জন নারীর্কমীকে বদিশেে চাকুররি জন্য প্ররেণ করছে।ে এতে রমেটিন্সেও এসছেে প্রচুর। তাদরে প্ররেতি রমেটিন্সেই বাংলাদশেরে বকিাশমান র্অথনীতকিে সচল রখেছে।ে 
 
বাংলাদশেরে নারীর্কমীদরে অভবিাসনরে ইতহিাস অতটা সুখকর নয়। যসেব নারীর্কমী বদিশেে যায় তাদরে অধকিাংশই অদক্ষ। অনকেইে দশেরে অভ্যন্তরে নয়িমতি র্কমে নযিুক্ত নয়। অনকেে সমাজ সংসাররে নানা প্রতকিূলতার মুখোমুখি হয়ে পাড়ি জমায় বদিশে।ে এদরে  মধ্যে কউে র্কমস্থলে দক্ষতার প্রমাণ দয়িছে,ে আবার কউে শারীরকি-মানসকি নর্যিাতনরে কারণে দশেে ফরিে এসছে।ে কউে বভিন্নি আশ্রয়কন্দ্রেে ঠাঁই নয়িছে।ে কউে কউে হাসপাতালে শারীরকি ও মানসকি চকিৎিসা নচ্ছি।ে
 
প্রবাসে র্কমীরা সফল হোন আর বফিল হোন তাদরেকে সরকার দশেরে মানবসম্পদ হসিবেে মূল্যায়ন কর।ে সরকার তাদরে প্ররেতি র্অথ আর র্অজতি দক্ষতা ও অভজ্ঞিতাকে দশেরে উন্নয়নে কাজে লাগাতে চায়। এ লক্ষ্যে সরকার ওয়জে র্আর্নাস আইন-২০১৭ নামে একটি আইন পাশ করছে।ে এতে বলা আছ-ে ওয়জে র্আর্নাস র্বোড বদিশেে র্কমরত কোনো নারী অভবিাসী র্কমী নর্যিাতনরে শকিার, র্দুঘটনায় আহত, অসুস্থতা বা অন্যকোনো কারণে বপিদগ্রস্ত হলে তাদরে উদ্ধার ও দশেে আনয়ন, আইনগত ও চকিৎিসাগত সহায়তার নশ্চিয়তা দওেয়া, এছাড়া দশেে প্রত্যাগত নারীর্কমীদরে সামাজকি ও র্অথনতৈকিভাবে পুর্নবাসন ও পুনঃপ্রতষ্ঠিার জন্য প্রকল্প গ্রহণ ও বাস্তবায়ন এবং দশে-েবদিশেে সফেহোম ও হল্পে ডস্কে পরচিালনা করতে পারব।ে এছাড়াও সমাজকল্যাণ এবং মহলিা ও শশিু বষিয়ক মন্ত্রণালয়কে সাথে নয়িে প্রত্যাগত নারীর্কমীদরে পুর্নবাসনে প্রবাসী কল্যাণ ও বদৈশেকি র্কমসংস্থান মন্ত্রণালয় একটি প্রকল্প হাতে নয়িছে।ে এর মাধ্যমে প্রত্যাগত নারীর্কমীদরে সবধরনরে সামাজকি নরিাপত্তাসহ দশেইে সম্মানজনক র্কমসংস্থানরে সুযোগ ঘটব।ে
 
এক পরসিংখ্যানে দখো যায়, ১৯৯১ সালে বাংলাদশে থকেে ২,১৮৯ জন নারীর্কমী বদিশেে গমন কর।ে ১৯৯২ থকেে ১৯৯৭ র্পযন্ত এই সংখ্যা কোনোভাবইে দুই হাজারকে অতক্রিম করতে পারনে।ি ১৯৯৮ থকেে ২০০১ সাল র্পযন্ত চার বছরে মোট ২,৪১৮ জন নারীর্কমীর বদৈশেকি র্কমসংস্থান হয়ছে।ে ২০০৪ সাল থকেে এই সংখ্যা ক্রমাগতভাবে বাড়তে থাক।ে প্রসঙ্গত ২০১৫ সালরে র্পূবে বাংলাদশেরে নারীর্কমীদরে সৌদি আরবে র্কমসংস্থান প্রায় বন্ধই ছলি। ২০১৫ সালে সৌদরি শ্রমবাজার খুলে যাওয়ার ফলে ২০১৫ থকেে ২০১৮ সালরে মধ্যে নারীর্কমীর বদিশে গমনরে সংখ্যা রাতারাতি লাখ ছাড়য়িে যায়। এই ৪ বছরে মোট ৩ লক্ষ ৪৩ হাজার ৮৩২ জন নারীর্কমীর বদৈশেকি র্কমসংস্থান হয়ছে।ে এর মধ্যে শুধু সৌদি আরবইে গয়িছেে ২ লক্ষ ৪৬ হাজার নারীর্কমী। ১৯৯১ থকেে ২০১৮ সাল র্পযন্ত মোট ৭ লক্ষ ৯৭ হাজার ৬৯৫ জন নারীর্কমী বদিশেে গমন করছে।ে বাংলাদশে সরকার নতুন করে হংকং, র্জডান, লবোনন, ওমানসহ কয়কেটি দশেরে সাথে বভিন্নি সক্টেরে নারীর্কমী প্ররেণরে চুক্তি করছে।ে অন্যান্য দশেওে নারীর্কমী প্ররেণরে জন্য সরকার সচষ্টে রয়ছে।ে সইেসাথে জোর দওেয়া হচ্ছে দক্ষ নারীর্কমী প্ররেণরে বষিয়টতিওে।
 
নারীর্কমীর নরিাপদ অভবিাসন নশ্চিতি করতে প্রবাসী কল্যাণ ও বদৈশেকি র্কমসংস্থান মন্ত্রণালয়রে উদ্যোগে বদিশে গমনচ্ছেু নারীর্কমীদরে সহায়তা প্রদানরে উদ্দশ্যেে বএিমইটতিে নারী অভবিাসী কন্দ্রে স্থাপন করা হয়ছে।ে দশেরে প্রায় সব জলো/উপজলোয় কারগিরি প্রশক্ষিণ কন্দ্রেরে মাধ্যমে যথাযথ ভাষা ও ট্রডে প্রশক্ষিণ প্রদান করে নারীর্কমীদরে যোগ্য করে তুলছ।ে নারীর্কমীর অধকিার রক্ষায় আলাপ-আলোচনা অব্যাহত রয়ছে।ে বদিশেে নর্যিাতনরে শকিার নারীর্কমীদরে জন্য সফেহোম নর্মিাণ, শল্টোর হাউজ স্থাপন, দশেে নরিাপদে ফরিয়িে আনা, নারীর্কমীর সবো ও সুরক্ষা নশ্চিতি করা, নরিাপদ র্কমপরবিশেরে নশ্চিয়তাসহ বতেন ও ক্ষতপিূরণ আদায়ে যথাযথ র্কতৃপক্ষ নগেোসয়িশেন করছ।ে প্রত্যাগত নারীর্কমীরা বমিানবন্দরে আসার সাথে সাথে প্রবাসী কল্যাণ ডস্কেরে মাধ্যমে মডেকিলে সুবধিাসহ নানা সহায়তা ও প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংকরে মাধ্যমে পুর্নবাসনরে ব্যবস্থা করা হচ্ছ।ে চালু রয়ছেে ২৪ ঘণ্টা হটলাইন ‘প্রবাসবন্ধু কল সন্টোর’ যার নম্বর (+৮৮ ০১৭৮৪ ৩৩৩ ৩৩৩ , +৮৮ ০১৭৯৪ ৩৩৩ ৩৩৩ এবং 
+৮৮ ০২৯৩৩৪৮৮৮)। সরকার বদিশে গমনচ্ছেু নারী-পুরুষ সকলকে জনে,ে বুঝ,ে ভাষা শখিে ও যথাযথ ট্রনেংি নয়িে অভবিাসনে পরার্মশ দচ্ছি।ে 
 
অন্যদকি,ে সৌদি আরব নঃিসন্দহেে বাংলাদশেরে একটি বড়ো শ্রমবাজার এবং ভ্রাতৃপ্রতমি মুসলমি দশে। আমাদরে শ্রমকিরোও সখোনে যতেে কছিুটা স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করনে। আমরা সৌদি আরবকে যে শ্রদ্ধার অবস্থানে রখেছেি নশ্চিয় সৌদি আরব সে সম্মানরে মূল্যায়ন করব।ে এতে দুই দশেই লাভবান হব।ে সৌদি আরবসহ হোস্ট দশেগুলোকে আর্ন্তজাতকি আইন মনেে চলতে হব।ে এতে করে র্কমীদরে প্রবাস জীবন স্বস্তরি হব।ে
 
প্র্রায়ই বভিন্নি দশে থকেে নারীর্কমীরা ফরিে আসছনে। দশেরে অনকে মহল থকেইে নারীর্কমীদরে বদিশেে প্ররেণরে ব্যাপারে নতেবিাচক মতামত আসছ।ে তবে অভবিাসন একটি স্বাভাবকি প্রক্রয়িা। কাজরে খোঁজে মানুষ স্ব উদ্যোগইে বদিশেে যায়। বাংলাদশেরে নারীসমাজরে র্অথনতৈকি মুক্তি ও টকেসই সামাজকি অবস্থান সৃষ্টি করতে নারীর্কমীর অভবিাসন অত্যন্ত জরুর।ি লক্ষণীয় য,ে বগিত সময়ে নারীর্কমীর অভবিাসন বভিন্নি কারণে ব্যাহত হওয়ায় নারী পাচাররে ঘটনা ঘটতো। অভবিাসন ও মানব পাচার একে অপররে সাথে খুবই ঘনষ্ঠিভাবে জড়তি। অভবিাসন ব্যাহত হলে মানব পাচার বড়েে যাবে -এটাই স্বাভাবকি।
 
শ্রম অভবিাসনরে ক্ষত্রেে জনসচতেনতা তাই খুব গুরুত্বর্পূণ হয়ে দাঁড়য়িছে।ে নগ্রিহরে শকিার হয়ে প্রত্যার্বতনরে র্পূবইে প্রতকিারমূলক ব্যবস্থা নতিে হব।ে বদিশে গমনচ্ছেু নারীর্কমীদরে সর্তক থাকতে হব।ে নারীর্কমীরা জনে,ে বুঝ,ে ভাষা শখি,ে বসেকি আইনকানুন জনে,ে যে এজন্সেরি মাধ্যমে যাবে সইে এজন্সেরি সর্ম্পকে খোঁজ নয়িে নশ্চিতি হয়,ে যথাযথ প্রশক্ষিণ নয়িে বদিশেে গলে,ে দশেীয় প্রশক্ষিণরে মান ও ময়োদ বাড়াল,ে তাদরে প্রত্যকেরে হাতে র্স্মাট ফোন দওেয়া হল,ে পাসর্পোট ও ছাড়পত্র পাওয়ার ক্ষত্রেে আরো নজরদারি বাড়ালে এবং সরকার ও দূতাবাসরে মাধ্যমে নারীর্কমীর খোজ নলি,ে সময়ে সময়ে মালকিরে সাথে র্কমীর ব্যাপারে খোঁজ নওেয়া হল,ে মাঝমেধ্যে ছুট-িঅবসর-বনিোদনরে ব্যবস্থা করা হল,ে সুষ্ঠু ডাটাবইেস ও মনটিরংি ব্যবস্থা জোরদার হল,ে নর্যিাতন ও প্রতারণাকারীকে উপযুক্ত শাস্তি দতিে পারলে নারীর্কমীর শ্রম অভবিাসনরে ক্ষত্রেে অনকে সমস্যাই লাঘব হতে পার।ে সকল প্রতকিূলতা ও প্রতবিন্ধকতা দূর করে জয় হোক সকল নারীর্কমীর, জয় হোক বাংলার শ্রমজীবী মানুষরে। 
share this news to friends